logo

Welcome To JBD IT


Student Registration

Client & Staf Login Area


Office use only Email Login Area


[email protected]
+88 01716905615
 

Audio & Video Editing

অডিও অ্যান্ড ভিডিও এডিটিং 

 

অডিও অ্যান্ড ভিডিও এডিটিং একটি ক্রিয়েটিভ স্কিল, কোন ভিডিও কে গল্প এবং অনুভূতিতে রূপান্তরিত করার পদ্ধতি। সহজ কথায়, ভিডিও এডিটিং হচ্ছে গল্পের প্রয়োজনে ধারণ করা ভিডিও ফুটেজ সম্পাদন করে পূর্ণাঙ্গ গল্পে পরিণত করা। আমরা মুভিতে যে দৃশ্য গুলো দেখি সেগুলো আসলে ভিডিও এডিটিং এর পরের ফাইনাল কাট। ভিডিও এডিট করার স্কিল থাকলে আমরা কর্পোরেট জব থেকে শুরু করে ফ্রিল্যান্সিং সব পর্যায়েই প্রায় কাজ করতে পারবো।

অডিও অ্যান্ড ভিডিও এডিটিং এর সুবিধা

 

আপনি একজন প্রফেশনাল ভিডিও এডিটর হতে পারলে কাজ নিয়ে আর চিন্তা করতে হবে না। কারন দেশের ডিজিটাল মিডিয়ায় (টিভি চ্যানেল, টেলিভিশন অনুষ্ঠান ও বিজ্ঞাপন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান, এনজিওতে) দক্ষ ভিডিও এডিটরের চাহিদা দিন দিন বাড়ছেই। এছাড়া আপনি দেশের বাইরে অনেক অনেক টিভি চ্যানেল আছে যেখানে কাজ করতে পারবেন। প্রোডাকশন বিজনেসে দক্ষ ভিডিও এডিটরের প্রয়োজনীয়তা দিন দিন বেড়ে চলেছে। নাটক বা মুভি এডিটর হিসেবে কখনই আপনার কাজের অভাব হবে না। আপনি একজন ট্রেইনার হিসেবে কাজ করতে পারবেন। অন্যদিকে মার্কেটপ্লেসে অ্যাকাউন্ট খুলে সার্ভিস সেল দিতে পারবেন।

এছাড়া আপনি অনলাইন মার্কেটপ্লেসে সার্ভিস সেল দিতে পারবেন। ফাইভারে ভিডিও এডিটিং নিয়ে অনেক গিগ পাবেন। সে গিগ গুলোর সেল দেখলেই আপনি বুজতে পারবেন আসলে এই সেক্টর কতোটা গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া আপওয়ার্কে প্রতিদিন অনেক জব পোস্ট হয় ভিডিও এডিটিং নিয়ে। আপনি সেখানে কাজে বিড করে অনেক ভালো একটা এমাউন্ট জেনারেট করতে পারবেন।

আজকাল ইউটিউব অনেক পপুলার একটি অনলাইন ইনকাম সোর্স। আপনার ভিডিও এডিটিং স্কিল কাজে লাগিয়ে সুন্দর সুন্দর ভিডিও তৈরি করে অ্যাডসেন্স থেকে ইনকাম করতে পারবেন। ভিডিও এডিটিং একটি এভারগ্রীন স্কিল সেক্টর। এখানে কাজ শিখে আপনাকে বসে থাকতে হবে না। প্রতি মাসে ভিডিও এডিটিং করে অনেক ভালো মানের একটি ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন।

অডিও অ্যান্ড ভিডিও এডিটিং কোর্সের বৈশিষ্ট্য সমূহ:

 

  •  অডিও অ্যান্ড ভিডিও এডিটিং সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা পাওয়া যায়।
  • সিলেবাস ভিত্তিক ক্লাস গ্রহণ ও সাপ্তাহিক পরীক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে।
  • প্রতিটি ক্লাসে কম্পিউটার নিয়ে প্র্যাকটিস করার সুযোগ।
  • নিজেদের স্কিল ডেভেলপমেন্ট হয়।
  • অনলাইন ও অফলাইনে দুই ধরনের ক্লাসের সুযোগ রয়েছে।
  • মাস্টার ট্রেইনার দ্বারা পরিচালিত ও ২৪ ঘন্টা অনলাইন সাপোর্ট।
  • ৩ মাস মেয়াদী বেসরকারি সার্টিফিকেট দেওয়া হয়।
  • সরকারি ও বেসরকারি দাপ্তরিক চাকুরী পাওয়া যায়।
  • আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি হয় ও নিজেকে উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা যায়।
  • ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং করা যায়।
  • ইন্টার্ণশিপ করার সুযোগ পাওয়া যায়।
  • কম্পিউটার ও ওয়াইফাই সুবিধা এবং শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ক্লাসরুম।

অডিও অ্যান্ড ভিডিও কোর্স ফি

  • অফলাইন কোর্স
    • ১২০০০ ৩ মাস
      • অফিসে বসে কোর্স করতে পারবেন।
      • কম্পিউটার এবং ওয়াইফাই সুবিধা।
      • মাস্টার ট্রেইনার দ্বারা পরিচালিত।
      • শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ক্লাসরুম।

    • রেজিস্ট্রেশন করুন
  • অনলাইন কোর্স
    • ১২০০০ ৩ মাস
      • জুম/গুগোল মিটের মাধ্যমে ক্লাস গ্রহণ।
      • মাস্টার ট্রেইনার দ্বারা পরিচালিত।
      • অনলাইনে পরীক্ষার সুযোগ।
      • অডিও/ভিডিও ই-লার্নিং ক্লাস।

    • রেজিস্ট্রেশন করুন

কোর্স সম্পর্কে প্রশ্ন ও উত্তর

অডিও অ্যান্ড ভিডিও এডিটিং কোর্সটি কাদের জন্য ?

ডিরেক্টর/ এসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর, ভিডিও এডিটর, ভিডিও গ্রাফার, ইউটিউবার, ব্র্যান্ড এক্সিকিউটিব, সাব এডিটর, মিডিয়া এক্সিকিউটিব, ভিএফক্স আর্টিস্ট, ট্রেইনার, মিউজিক ডিরেকটর, ভিডিও টিউটর ইত্যাদি এই সকল সেক্টরে যারা ক্যারিয়ার গড়তে ইচ্ছুক তাদের জন্য এই কোর্সটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ।

সরাসরি অফিসে এসে কিভাবে কোর্স করব?

আপনি সরাসরি অফিসে এসে অডিও ও ভিডিও এডিটিং কোর্স করতে পারবেন অথবা অনলাইনের মাধ্যমেও এই কোর্সটি করতে পারবেন।

কোর্সের পেমেন্ট কিভাবে পরিশোধ করব এবং কোর্স ফি কত?

কোর্সের পেমেন্ট আপনি অফিসে সরাসরি জমা দিতে পারেন অথবা অনলাইনের মাধ্যমে জমা দিতে পারবেন।

এই কোর্স কেন করবেন ?

এই কোর্স  শেষ করলে অডিও ও ভিডিও এডিটং নিয়ে কোন সমস্যা থাকবে না। যে কোন ধরণের ভিডিও প্রডাকশনের এডিট করা যাবে অনায়াসে।

অনলাইনের মাধ্যমে কি এই কোর্স করতে পারব?

অনলাইনের মাধ্যমেও এই কোর্সটি করতে পারবেন।

এই কোর্সে অডিও ও ভিডিও এডিটিং কি প্রাক্টিক্যালি শিখানো হবে?

এই কোর্সে বেসিক এডিটিং থেকে শুরু করে এডিটিং এর সকল খুঁটিনাটি বিষয় গুলো শেখানো হবে।

এই কোর্সে ভর্তির জন্য কি কি প্রয়োজন ?

  • দুই কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি
  • জন্ম নিবন্ধন অথবা জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি